নাগরিকদের তথ্যের অধিকারের বাস্তবিক রূপ দেওয়ার লক্ষ্যে ভারতের সংসদ ২০০৫ সালে তথ্যের অধিকার আইন ২০০৫ অনুমোদন ও আইনে রূপায়ণ করেন| এই আইন জম্মু ও কাশ্মীর ছাড়া ভারতের সমস্ত রাজ্য ও কেন্দ্র শাসিত অঞ্চলগুলিতে প্রযোজ্য। জম্মু ও কাশ্মীরের তথ্যের অধিকার সংক্রান্ত নিজস্ব আইন আছে।

  তথ্যের অধিকার আইনের মূলভাবনা হলো নাগরিকদের ক্ষমতা প্রদান করা, সরকারী কাজের দায়বদ্ধতা ও স্বচ্ছতা বৃদ্ধি করা, দুর্নীতি রোধ করা এবং প্রশাসনের কাজ কর্ম সম্পর্কে জনগণ কে ওয়াকিবহাল করা। দায়বদ্ধতা ছাড়া কোন গনতান্ত্রিক সরকার চলতে পারে না। তাই পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তে সরকারের কাজকর্মের স্বচ্ছতার দাবী উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পেয়ে চলেছে।

  তথ্যের অধিকার আইনের ধারা ১৫(১) মোতাবেক, ত্রিপুরা তথ্য আয়োগ গঠিত হয়। পরবর্তীকালে আয়োগ ত্রিপুরা তথ্যের অধিকার নিয়মাবলী, ২০০৮ প্রনয়ন করেন এবং আইনের ধারা ২৭ মোতাবেক ত্রিপুরা সরকার অফিসিযেল গেজেটে তার প্রকাশ করেন।

পাতা: 1 | 2 | 3 | 4 | 5 | 6 | 7 | 8 | 9 | 10 | 11 | পরের পাতা